শরীয়তপুরে করোনায় একজনের মৃত্যুতে নড়িয়ার ৩৩ বাড়ি লকডাউন

59

এস,এম,স্বাধীন: শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার দুইটি ইউনিয়নের ৩৩ টি বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। শনিবার রাত পৌনে ৮ টার দিকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ ঘোষণা দেয়া হয়। জেলা প্রশাসন ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আজ ঢাকায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী দুই ব্যক্তির একজন আমান উল্লাহ বেপারি (৯০) শরীয়তপুর জেলার নড়িয়ার বাসিন্দা। তিনি নড়িয়া উপজেলার ডিঙ্গামানিক ইউনিয়নের থিরোপাড়া গ্রামে নিজের বাড়িতে বসবাস করলেও মাঝে মাঝেই ঢাকার মিরপুরে তার ছেলের বাসায় বেড়াতে যেতেন। গত ২৬ মার্চ তিনি ঢাকা থেকে নড়িয়ায় আসেন। এরপর গত ৩১ মার্চ অসুস্থ হয়ে পড়লে চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর তিনি করোনা আক্রান্ত বলে জানা যায়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজকে ঢাকায় কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। আইইডিসিআর এর প্রেস ব্রিফিং এ করোনা আক্রান্ত হয়ে আজকে যে দুই জনের মৃত্যুর কথা বলা হয়েছে, তিনি তার মধ্যে একজন।

জেলা প্রশাসনের নিকট করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যুর তথ্য আসার পর তারা ঐ ব্যক্তির বাড়িসহ আশেপাশের ৩৩ টি বাড়ি লকডাউন করার ঘোষণা দেন। ৩৩ টি বাড়ির ১৮০ জন সদস্যকে আগামী ১০ দিন বাড়ি থেকে বের না হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি ওই এলাকায় বাইরের কারো প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের জানান, নড়িয়া উপজেলার ডিঙ্গামানিক ইউনিয়নের ৮ নং ওয়াডের্র ২৪ টি পরিবার এবং ঘড়িষার ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ৯ টি পরিবারের সদস্যদের লকডাউন করে রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এই সময়ে তাদের খাদ্য, ঔষধ সহ কোনো কিছু প্রয়োজন হলে প্রশাসন তা পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করবে।