একুশের প্রথম প্রহরে সাতক্ষীরা শহীদ বেদীতে সর্বস্তরের মানুষের বিনম্রশ্রদ্ধা

53

কালজয়ী ডেস্ক: একুশের প্রথম প্রহরে সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে মহান ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে। মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শহীদ বেদীতে সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা নিবেদন করেছে। ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রভাষা বাংলা দাবি আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষের উপর গুলি চালায় তৎকালীন পুলিশ। এতে শহিদ হন রফিক, জব্বার, বরকত, শফিউরসহ নাম না জানা আরো অনেকে। পাকিস্তান শাসনামল থেকেই দিনটিকে শ্রদ্ধার সঙ্গে পালন করে আসছে বাঙালিরা। ভাষার দাবিতে বিশ্বের প্রথম কোনো জাতি হিসেবে জীবন দেওয়ায় ২১শে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেয় ইউনেস্কো। ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর ইউনেস্কোর একটি সভায় ১৮৮টি রাষ্ট্রের সম্মতিতে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় এবং ঘোষণা করা হয়। ২০০০ সাল থেকে সারা বিশ্বে দিবসটিকে যথাযথ মর্যাদায় পালন করছে বিভিন্ন ভাষাভাষী জনগোষ্ঠী। বৃহস্পতিবার রাত ১২ টা ১ মিনিটে সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের শহিদ বেদীতে ফুল দিয়ে সেই ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। শহিদ বেদীতে ১২টা ১ মিনিটে প্রথমে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন সাতক্ষীরা সদর ০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি, তালা-কলারোয়া আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, জেলা প্রশাসক এস.এম মোস্তফা কামাল, সাতক্ষীরা জেলা ও দায়রা জজ মো. মফিজুর রহমান, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মুনসুর আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম, সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডা. হোসাইন সাফায়াত, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. বদিউজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু সাঈদ, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক সাতক্ষীরা হুসাইন শওকত, পৌর মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতি, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আসাদুজ্জামান বাবু, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবাশীষ চৌধুরী, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক দৃষ্টিপাত সম্পাদক জি এম নুর ইসলাম, সহ-সভাপতি কাজী শওকত হোসেন ময়না সাধারণ সম্পাদক মোজাফ্ফার রহমান, দৈনিক আজকের সাতক্ষীরা পত্রিকার সম্পাদক মো. মহসিন হোসেন বাবলু, দৈনিক যুগেরবার্তা পত্রিকার সম্পাদক আবু নাসের মো. আবু সাঈদ, দৈনিক সুপ্রভাত পত্রিকার সম্পাদক এ.কে.এম আনিছুর রহমান, দৈনিক সাতনদী পত্রিকার সম্পাদক হাবিবুর রহমান, সাপ্তাহিক ইচ্ছেনদী পত্রিকার সম্পাদক মকসুমুল হাকিম, দৈনিক আজকের সাতক্ষীরা পত্রিকার সিনিয়র সম্পাদক শেখ তহিদুর রহমান ডাবলু প্রমুখ। এরপর দীর্ঘ সারিতে দাঁড়িয়ে শহিদ মিনারের বেদীতে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেন রাজনীতিক, কূটনীতিক, শিক্ষাবিদ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন সংগঠন, শিক্ষক, ছাত্রসহ সকল শ্রেণি-পেশা ও বিভিন্ন বয়সের মানুষ। শহরের বিভিন্ন সড়কে মনোরম আল্পনা আঁকা শ্রদ্ধা ও ভক্তি বাড়িয়ে দেয়। এসময় শহিদ মিনার প্রাঙ্গণে খালি পায়ে ভিড় করেন সর্বস্তরের মানুষ। পর্যায়ক্রমে সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন- সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগ, সাতক্ষীরা প্রেস ক্লাব, জেলা জজশীপ সাতক্ষীরা, সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন অফিস, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, জেলা শ্রমিক লীগ, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ, বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ, জেলা কৃষক লীগ, দৈনিক কাফেলা, দৈনিক দৃষ্টিপাত, দৈনিক আজকের সাতক্ষীরা, দৈনিক যুগেরবার্তা, দৈনিক সাতনদী, দৈনিক সুপ্রভাত সাতক্ষীরা, দৈনিক দক্ষিণের মশাল, অনলাইন ডেইলি সাতক্ষীরা, অনলাইন ভয়েস অব সাতক্ষীরা, অনলাইন দৈনিক সাতক্ষীরা, সাপ্তাহিক ইচ্ছেনদী, সাতক্ষীরা টাইমস ২৪, সম্মিলিত সাংবাদিক এ্যাসোসিয়েশন, সাতক্ষীরা সরকারি কলেজ, সাতক্ষীরা নার্সিং ইনস্টিটিউট, সাতক্ষীরা জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন, সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজ, দিবা-নৈশ কলেজ, ছফুরননেছা মহিলা কলেজ, সাতক্ষীরা সিটি কলেজ, জেলা কারাগার, সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরি, জেলা জাতীয় পার্টি, জেলা জাতীয় যুব সংহতি, জাতীয় ছাত্র সমাজ, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিকদল জাসদ, জেলা কৃষকলীগ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল বাসদ, জেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদ, জেলা আইনজীবী সমিতি, সাতক্ষীরা পৌরসভা, বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি প্রতিবন্ধী স্কুল, বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতি সাতক্ষীরা, সাতক্ষীরা চেম্বার অব কমার্স, রোটারী ক্লাব অব সাতক্ষীরা, সাতক্ষীরা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, সাতক্ষীরা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, সাতক্ষীরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, সাতক্ষীরা টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ, নবজীবন ইনস্টিটিউট, সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরি, সাতক্ষীরা আহছানিয়া মিশন আদর্শ আলিম মাদ্রাসা, সাতক্ষীরা জেলা স্কাউটস্, সদর উপজেলা শিক্ষক সমিতি, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), সাতক্ষীরা জেলা শিল্পকলা একাডেমী, সাতক্ষীরা জেলা শিশু একাডেমি, জেলা ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন, নলকুড়া নাট্য গোষ্ঠী, বিবেকানন্দ শিক্ষা ও সংস্কৃতি পরিষদ, সাতক্ষীরা ‘ল’ কলেজ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক পরিষদ, বর্ণমালা একাডেমি, দীপালোক একাডেমী, জেলা ক্রীড়া সংস্থা, নলকুড়া তরুণ সংঘ, সাতক্ষীরা অন লাইন প্রেসক্লাব, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ, সদর উপজেলা কৃষক লীগ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম এড. এন্তাজ আলী স্মৃতি সংসদ, জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়ন, ইসলামী ব্যাংক কমিউনিটি হাসপাতাল, বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি সাতক্ষীরা জেলা শাখা, জেলা মন্দির সমিতি, সাতক্ষীরা সদর সার্বজনীন পুজা মন্দির, পৌর শ্রমিকলীগ, মটর সাইকেল চালক এসোসিয়েশন, জেলা মাহিন্দ্রা থ্রি হুইলার চালকলীগ, জেলা রিকসা ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ অন্যান্য ছাত্রসংগঠন এবং সর্বস্তরের নাগরিকেরা ফুল দিয়ে বায়ান্নর ভাষাশহিদদের স্মরণ করেন। এসময় মাইকে বাজতে থাকে অমর একুশের গানের করুণ সুর ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি। ধারাভাষ্যকারেরা অবিরাম কবিতার পক্তিমালা আবৃত্তি করেন। ঘোষণা মঞ্চে দায়িত্ব পালন করেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক শেখ মোসফিকুর রহমান মিল্টন, নাসরিন খান লিপি, কণ্ঠশিল্পি শামীমা পারভীন রত্না, আবু আফ্ফান রোজ বাবু, হেনরী সরদার, তৈয়েব হাসান বাবু।