জগন্নাথপুরের কিশোরী সৌদি আরবে নিপীড়নের শিকার: দেশে ফেরার আকুতি

112

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার জগন্নাথপুর পৌর সদরের জগলুর মিয়ার মেয়ে কিশোরী ফারহানা বেগম (১৭)। সে সৌদি আরব প্রবাসী সেখানে নিপীড়নের শিকার হয়ে দেশে ফেরার আকুতি জানিয়েছেন। ফারহানাকে সৌদির দালাল ইসরাইল হুমকি দিয়ে বলছে বাংলাদেশের মামলা না তুললে বাংলাদেশ তার লাশ যাবে, একথা শুনে ফারহানা তার পরিবারকে বললে পরিবারের সবাই দিশে হারা হয়ে পড়েছেন।

সূত্র জানায়, গত চার/পাঁচ মাস খানেক আগে সৌদি আরব থেকে ইমো’তে কল করেন ফারহানা তার পরিবারের কাছে, সৌদি আরবে নিপীড়নের শিকার হওয়ার কথা জানান। গত এক সাপ্তাহ আগে ফারহানা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বাংলাদেশর মামলা না তুললে, আমাকে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দিচ্চে সৌদি দালাল ইসরাইল। সে বলে, আমি অনেক কষ্টে আছি। আমারে বাচাঁও। আমারে উদ্ধার কর। মালিকের বাড়ির লোকদের স্বভাব ভালা না। আমার উপর অত্যাচার করে। এক মাস ধরে শরীরে জ্বর, দাঁতে ব্যথা। ডাক্তারের কাছে লইয়া যায় না। সৌদির সেমি রিয়াদ সেমি আবু ফাদি এলাকায় থাকে মেয়ের মালিকের নাম্বার মোবা: ৯৬৬৫০০৫৫৯৭৫। এর থেকে আর আমি বেশি কিছু জানিনা। আমি বাংলাদেশের মাটিতে আইতাম চাই। ২৭ জানুয়ারী সোমবার পরিবারের সঙ্গে ফারহানার ইমুতে কথা হওয়ার পর আর যোগাযোগ নেই। গত বছরের ১০ই মার্চ সৌদি আরবে যাওয়া পর অল্প সময় পরিবারের সাথে কথা হয়। ফারহানার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে দুশ্চিন্তায় অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ফারহানার বাবা-মা ও পরিবারের লোক জন।

ফারহানার পরিবার ও প্রতিবেশী সূত্র জানায়, জগন্নাথপুর পৌর এলাকার বাড়ি জগন্নাথপুর এক দালালের মাধ্যমে ঢাকার আরেক দালাল কাছে দুই লক্ষ টাকায় বিনিময়ে সৌদি আরবের বিক্রি করেন ফারহানাকে, সৌদি আরবে যাওয়ার পর থেকেই পরিবারে সঙ্গে যোগাযোগ না থাকায়, মাত্র কয়েকবার ফোন করায় গত ২ ডিসেম্বর জগন্নাথপুর থানায় লিখিতভাবে অভিযোগ করেন তার রাজিয়া বেগম। ফারহানার বাবা জগলু মিয়া বলেন, কষ্ট করে সংসার চালাই। তার ছয় মেয়ে ও এক ছেলে।। ছয় মেয়ে মধ্যে তিন নাম্বার, বিয়ের উপযুক্ত হওয়ায় তাদের ভবিষ্যৎ চিন্তা করে তিনি ফারহানাকে সৌদি আরব পাঠান।

এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ইফতেয়ার উদ্দিন চৌধুরী সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, স্থানীয় সংসদ, পরিকল্পনা মন্ত্রী আলহাজ¦ এম এ মান্নান মহোদয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ফারহানা মেয়েকে দেশে আনার জন্য ডিও লেটান দেন।