“ সংগ্রাম এখনো শেষ হয়নি মূলত সংগ্রাম শুরু হয়েছে”-কুমিল্লায় রাষ্ট্রপতি

74

দেলোয়ার হোসেন জাকির: রাষ্ট্রপতি ও কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, ‘ অত্যান্ত দূঃখের সাথে বলতে হয় বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজসহ কিছু কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাদক ঢুকে গেছে’ আমাদের প্রিয় শিক্ষার্থীরা মাদকের সাথে জড়িয়ে পরছে। যাতে করে শিক্ষার্থদের জীবন ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। জীবন গড়ার আগেই শেষ হয়ে যাচ্ছে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যত। তিনি বলেন, এ অবস্থা থেকে সকলকে বেরিয়ে আসতে হবে, মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করতে হবে। যে কোন মূল্যে মাদক থেকে দূরে থাকতে শিক্ষার্থীদের আহবান জানান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

শিক্ষার্থীদের উচ্চতর মানবসম্পদ আখ্যা দিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, তোমাদের তারুণ্য, মেধা ও প্রজ্ঞাকে কাজে লাগিয়ে দেশের ভবিষ্যত উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে নিজেকে সম্পৃক্ত করতে হবে। ১৯৭২ সালের ২০ ফেরুয়ারি কৃষি বিপ্লবের ডাক দিয়ে জাতির পিতা বলেছিলেন “ সংগ্রাম এখনো শেষ হয়নি, মূলত – সংগ্রাম শুরু হয়েছে। এবারের সংগ্রাম সোনার বাংলা গড়ে তোলার সংগ্রাম”। সত্য, ন্যায়, নৈতিকতা ও দৃঢ়তার সাথে সোনার বংলা গড়ে তোলার সকল কাজে শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ত হওয়ার আহবান জানান। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ সোমবার বিকাল সাড়ে তিনটায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে আয়োজিত সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠানে সমাবর্তন বক্তা হিসাবে বক্তৃতা করেন অর্থমন্ত্রী এএইচএম মুস্তফা কামাল। বক্তব্য রাখেন, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, এমপি, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ ও কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্যবৃন্দ, জাতীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ, রাষ্ট্রপতির সংশ্লিষ্ট সচিবগণ, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিগন এবং বেসরকারি ও সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে মোট দু’হাজার ৮৮৮ শিক্ষার্থীকে ডিগ্রী প্রদান করা হয় এবং ১৬ জন শিক্ষার্থীর হাতে স্বর্ণ পদক তুলে দেন রাষ্ট্রপতি। সমাবর্তনে দীর্ঘক্ষন বক্তৃতা করেন রাষ্ট্রপতি, শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ছাত্র-শিক্ষক সম্পর্ক ভুলে গেলে হবে না, ‘মনে রাখবেন, আপনারা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক। সাধারণ মানুষ আপনাদেরকে সম্মান ও মর্যাদার উচ্চাসনে দেখতে চায়। আমাদের শিক্ষার্থীরা যাতে ভালো ও আদর্শ মানুষ হিসেবে বেড়ে উঠতে পারে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

এ সময় গ্রাজুয়েটদের উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘তোমরা গ্রাজুয়েটরা দেশের উচ্চতর মানবসম্পদ। দেশের ভবিষ্যৎ উন্নয়ন ও অগ্রগতি নির্ভর করছে তোমাদের ওপর। তোমরা দেশের উন্নয়নের প্রধান চালিকাশক্তি। দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ থেকে একজন গ্রাজুয়েট হিসেবে সব সময় সত্য ও ন্যায়কে সমুন্নত রাখবে। নৈতিকতা দিয়ে দুর্নীতি ও অন্যায়ের প্রতবাদ করবে। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তনে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন ও পুলিশ বিভাগের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ, রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সামাজিক সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ ও সাংবাদিকগণ উপস্তিত ছিলেন।