বাড়ছে শৈতপ্রবাহ : বাড়ছে শিশু ও বৃদ্ধ রোগির সংখ্যা!

35

হুমায়ুন কবির সুমন: সিরাজগঞ্জে শৈতপ্রবাহের কারণে শীতের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় হাসপাতালগুলোতে বাড়ছে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া আক্রান্ত শিশু ও বৃদ্ধ রোগির সংখ্যা। নবজাতক থেকে শুরু করে ১-৫ বছর বয়সী শিশুরা এ রোগে বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। প্রতিদিনই ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়া রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। সিরাজগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিস সুত্রে জানা যায়, পৌষ মাসের শুরু থেকে আজ বৃহস্পতিবার পর্যন্ত হাসপাতালে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৭২৭ জন।

সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে বৃহস্পতিবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় শিশু ওয়ার্ডের বেড পরিপূর্ন ও মেঝে বারান্দায় সাড়ি হয়ে শুয়ে আছে শিশু রোগীরা।

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ৪০ বেডের ডায়রিয়া ওয়ার্ডে ভর্তি শিশুর সংখ্যাই ৪৩। এছাড়াও নিউমোনিয়াসহ অন্য রোগে আক্রান্ত শিশুর সংখ্যা আরও ১৫ জন। অপরদিকে এক থেকে ২৮ দিন বয়সী শিশু রোগীর সংখ্যা ১২। সিটের তুলনায় রোগীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় হিমশিম খাচ্ছেন চিকিৎসকরা।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিসের পরিসংখ্যান কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির জানান, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল ছাড়াও জেলার বিভিন্ন হাসপাতাল ক্লিনিকে এ পর্যন্ত ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি শিশুর সংখ্যা ৭০ জন। তবে শীতের শুরু থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত হাসপাতালে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৭২৭ জন। প্রতিদিনই ভর্তি রোগীর সংখ্যা বাড়ছে।

সিরাজগঞ্জের সিভিল সার্জন ডাঃ জাহিদুল ইসলাম জানান, শীতের মাত্রা বেশী হলে রোটা ভাইরাস ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়ে। রোটা ভাইরাস খাবারের সঙ্গে মিশে পেটে যাওয়ায় শিশুসহ সব বয়সের মানুষ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, শৈতপ্রবাহে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে শিশু। জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ এ বিষয়ে সচেতন রয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি শিশুদের সু-চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। যার কারণে বেশিরভাগ শিশুই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে বলে তিনি জানান।