1. bpdemon@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
  2. ratulmizan085@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
মানিকগঞ্জের সিংগাইরে ব‍্যবসায়ীকে মারধর,প্রতিবেদন অনুযায়ী ব‍্যবস্থা-জেলা প্রশাসক
বাংলাদেশ । রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ।। ১৮ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি
ব্রেকিং নিউজ
মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে অজ্ঞাত নারীর মরদেহ উদ্ধার নেত্রকোনা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ট্রাক-পিক আপ ভ্যানের সংঘর্ষে নিহত-৩ প্রতিবন্ধীর জায়গা দখল,ন্যায়ের আশায় ঘুরছেন প্রশাসনের দুয়ারে মৌলভীবাজারে বিদ্যুৎপৃষ্টে নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থীর মৃত্যু কুমিল্লার বুড়িচং থানার অভিযানে গাঁজাসহ ২মাদক কারবারি আটক মুন্সীগঞ্জে হাতুড়ি পেটায় নিহত মীম হত্যা মামলায় আটক-১ চট্টগ্রামের আনোয়ারায় পৃথক পুলিশি অভিযানে ওয়ারেন্টভুক্ত ৪আসামী আটক কুমিল্লার চান্দিনায় বিশাল শোডাউন নিয়ে ছাত্রলীগ নেতা সোহাগকে বরণ শেখ হাসিনার হাত ধরেই বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে-বেগম মতিয়া চৌধুরী চাঁদপুরে মেঘনায় নৌ পুলিশের অভিযানে ১৪লাখ মিটার কারেন্ট জাল ও মাছ জব্দ

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে ব‍্যবসায়ীকে মারধর,প্রতিবেদন অনুযায়ী ব‍্যবস্থা-জেলা প্রশাসক

সাইফুল ইসলাম তানভীর :
  • প্রকাশিত: সোমবার, ১২ জুলাই, ২০২১
  • ১৬২ বার পড়েছে

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চলাকালে ব্যবসায়ীকে মারধরের ঘটনায় পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহারের পর এবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুনা লায়লার ভূমিকা তদন্তে কমিটি করেছে জেলা প্রশাসন।তদন্তে সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক আব্দুল লতিফ। তিনি বলেন,প্রতিবেদন অনুযায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এর আগে রবিবার (১১ জুলাই) দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক মতবিনিময় সভায় জেলার সিঙ্গাইর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুনা লায়লাকে জড়িয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় অসত্য সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন মানিকগঞ্জ জেলা শাখা একটি লিখিত প্রেস নোট জাড়ি করেন যা পড়ে শোনান সংগঠনের সভাপতি জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ।

এই ঘটনায় এক পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করার পরও মারধরের নির্দেশদাতা ইউএনওর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় সমালোচনার মধ্যে পড়ে রোববার বিকেলে এই সিদ্ধান্ত নেন জেলা প্রশাসন।আর এ তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে জেলা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক শফিকুল ইসলামকে।তবে কত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে হবে,সেই বিষয়টি নির্দিষ্ট করে দেয়া হয়নি।

তদন্তের দায়িত্ব পাওয়া শফিকুল ইসলাম বলেন,দ্রুত সময়ের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছেন জেলা প্রশাসক মদোহয়।তবে কোনো সময় নির্ধারণ করে দেননি।আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে জেলা প্রশাসক মহাদয়ের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে পারব।তিনি আরও জানান সোমবার ১২ জুলাই এ তদন্তের কাজ শুরু করা হবে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া প্রতিরোধে শাটডাউনের মধ্যে সিংগাইরের ধল্লা ইউনিয়নের জাগীর বাজারে দোকান খুলেছিলেন স্বর্ণকার তপন চন্দ্র দাশ।বৃহস্পতিবার বিকেলে সেই বাজারে অভিযান চালান ইউএনও রুনা লায়লা।তপনকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করার পর তিনি তা পরিশোধ করেন।সেখানে এক পুলিশ সদস্য তাকে লাঠি দিয়ে আঘাত করেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

পুলিশ জানিয়েছে,ইউএনওর নির্দেশেই এই মারধর হয়েছে।গণমাধ্যমে এই ঘটনা প্রকাশ হওয়ার পর শুক্রবারই মারধরে জড়িত সন্দেহভাজন পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিংগাইর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম মোল্লা।তিনি আরও বলেন,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে যেহেতু ওই ব্যবসায়ীকে মারধর করেছেন এই অভিযোগে তাকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়।

ইউএনও রুনা লায়লা যদিও এই ভূমিকায় তার দায় অস্বীকার করেছেন,তবে সিংগাইরের ওসি ছাড়াও সার্কেলের এএসপিও নিশ্চিত করেছেন,পুলিশ মারধর করেছে ইউএনওর নির্দেশেই।সিংগাইর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার রেজাউল বলেন,পুলিশ সদস্য রফিকের কথা রেকর্ড করা হয়েছে।সে বলেছে,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশেই মেরেছে।

উল্লেখ্য যে,করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া প্রতিরোধে শাটডাউনের মধ্যে সিংগাইরের ধল্লা ইউনিয়নের জাগীর বাজারে দোকান খুলেছিলেন স্বর্ণকার তপন চন্দ্র দাশ।বৃহস্পতিবার বিকেলে সেই বাজারে অভিযান চালান ইউএনও রুনা লায়লা।এ সময় তপনকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করার পর তা পরিশোধ করেন।এরপর তাকে লাঠি দিয়ে মারধর করা হয়।

এ বিষয়ে ইউএনও বলেন,সরকারের নির্দেশ উপেক্ষা করে লকডাউনের মধ্যে দোকান খোলা রেখে দোকানের শাটার নামিয়ে মালিকসহ ৮-১০ জন লোক বসা ছিল।দোকান খোলা ও লোকসমাগম করার অপরাধে তাকে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।তাকে মারধরের কোন ঘটনা ঘটেনি।এক প্রশ্নের জবাবে রুনা লায়লা বলেন,আমি তো কাউকে মারতে বলিনি।

কিন্তু মারল কেন-এমন প্রশ্নে তিনি বলেন,আমি তখন দূরে ছিলাম।ততক্ষণে ঘটনা ঘটে গেছে।কিন্তু তাৎক্ষণিক কোনো ব্যবস্থা কেন নেননি আর সেই পুলিশের বিরুদ্ধে কেন রিপোর্ট করেননি-এমন প্রশ্নে ইউএনও রুনা লায়লা বলেন,এটা ওই রকমের কোনো ঘটনা না,সে জন্য পুলিশকে কিছু জানানো হয়নি।

পিটুনির শিকার ব্যবসায়ী তপন চন্দ্র দাশ বলেন,ক্রেতাদের পূর্বের কিছু মালের অর্ডার থাকায় সেগুলো ডেলিভারি দিতেই দোকান খুলেছিলাম।এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত এসে হাজির হয়।আমি জরিমানার টাকাও পরিশোধ করি।পুলিশ দেখে ভয় পেয়ে ইউএনওকে আপা বলে ক্ষমা চাই।এরপর কিছু বুঝে ওঠার আগেই আমাকে লাঠি দিয়ে তিন-চারটি বাড়ি মারে এক পুলিশ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
প্রকাশক কর্তৃক জেম প্রিন্টিং এন্ড পাবলিকেশন্স, ৩৭৪/৩ ঝাউতলা থেকে প্রকাশিত এবং মুদ্রিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Hi-Tech IT BD