1. bpdemon@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
  2. ratulmizan085@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
দৌলতপুরে বিএনপি’র স্বতন্ত্র প্রার্থীকে এমপি পুত্রের হুশিয়ারি
বাংলাদেশ । বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ।। ২রা জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

দৌলতপুরে বিএনপি’র স্বতন্ত্র প্রার্থীকে এমপি পুত্রের হুশিয়ারি

দৌলতপুর(কুষ্টিয়া)প্রতিনিধিঃ
  • প্রকাশিত: সোমবার, ২২ নভেম্বর, ২০২১
  • ৬২ বার পড়েছে

আগামী ২৮ নভেম্বরের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে এবার কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সাবেক স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য ও দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি রেজাউল হক চৌধুর বড় ছেলে এমরান চৌধুরী কলিন্সের বক্তব্য নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সর্বত্র তোলপাড় শুরু হয়েছে। দৌলতপুর উপজেলার রিফাইতপুর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী জামিরুল ইসলাম বাবু’র পক্ষে নির্বাচনী সভায় বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি প্রতিপক্ষ প্রার্থীকে হুমকিসহ অশালীন ও বেফাঁস কথা বলেছেন। গত ১৬ নভেম্ভর রাতে রিফাইতপুর ইউনিয়নের বিন্দিপাড়া গ্রামে তিনি জামিরুল ইসলাম বাবুর পক্ষে এমরান চৌধুরী কলিন্স এমন বক্তব্য রাখেন। এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

সাবেক এমপি রেজাউল হক চৌধুরীর ছেলে এমরান চৌধুরী কলিন্স দৌলতপুর বিএনপির প্রয়াত সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলামের ছেলে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবিদ হাসান মন্টি সরকারকে হুশিয়ার করে বলেন, ‘ভাই এখনো সময় আছে, আমরা কিন্তু এখনো আমাদের রুদ্ররূপ শুরু করিনি ভাই। আপনি এখনো সময় আছে আপনার মান সম্মান নিয়ে ঘরে উঠুন। সময় আছে মান সম্মান নিয়ে নির্বাচনের মাঠ থেকে সরে দাড়ান তা নাহলে রক্তের বন্যা বয়ে যাবে। আর আমরা যদি রুদ্রমুর্তি ধারন করি, এটা হবে আপনার জন্যও খারাপ, আপনার দলের জন্যও খারাপ। আমরা আমাদের প্রার্থীকে বিজয়ী করার জন্য কত কিছু করতে পারি, সেটা হয়তো আপনার ধারণা নেই। নৌকা পেয়েছে আমাদের জামিরুল ইসলাম বাবু ভাই’।

এমরান চৌধুরী তার কয়েক মিনিটের বক্তব্যে আরো বলেন, জামিরুল ইসলাম বাবু টোকেন চৌধুরীর প্রার্থী, রেজাউল হক চৌধুরীর প্রার্থী, মাহবুব উল আলম হানিফ সাহেবের প্রার্থী। তাই তাকে বিজয়ী করার জন্য আমাদের যা যা করার দরকার তাই করবো।রাতের এ সমাবেশে এলাকার বেশ কয়েক’শ মানুষ দাঁড়িয়ে ও বসে তার কথা শোনেন। এ সময় বক্তব্য শুনে অনেকে হাত তালিও দেন।

এমরান চৌধুরী কলিন্স ‘বিএনপির প্রাথীকে হুশিয়ার দিয়ে আরো বলেন, আপনি আমাদের শ্রদ্ধাভাজন ভাই, আমি আপনাকে অনুরোধ করবো লোকবল তুলে, নির্বাচনের টাকা জমা দিয়েছেন সুন্দর ভাবে মাইকিং করে অথবা সাংবাদিক সম্মেলন করে নির্বাচন বর্জন করুন। এতে আপনারও ভালো হবে-আপনার দলের লোকেরও ভাল হবে।’ যদি কখনো বিএনপি সরকার ক্ষমতায় আসে, আপনি আবার নির্বাচন করবেন। আমরা সেদিন আপনাকে কিছু বলতে যাব না, কিন্তু এখন আমার দল ক্ষমতায় আপনি কেন এখন নির্বাচন করে শুধু শুধু নিজের ভাই বোনকে বিপদে রাখবেন। আপনি যদি আপনার দলের লোককে ভালবেসে থাকেন, আপনি যদি আপনার গ্রামের লোককে ভালবেসে থাকেন, আপনি যদি আপনার দলকে ভালবেসে থাকেন, তাহলে আপনি দলের প্রার্থী শ্রদ্ধাশীল হয়ে এই নির্বাচন বর্জন করে ঘরে ওঠে বসে থাকুন। তা-না হলে ভাই এই রক্তের খেলা কিন্তু বন্ধ হবে না। এই রক্তের দ্বায়ভার কিন্তু আপনাকে নিতে হবে। আগামী ২৮ তারিখে কিন্তু আপনি ভোট সেন্টারে যেতে পারবেন না, নিজের ভোটটাও দিতে পারবেন না। শুধু শুধু আপনি আপনার ক্ষতি করছেন।

দলের বিদ্রোহী প্রার্থী ও নেতাদের উদ্দেশ্য করে বলেন, যারা এখনো নৌকায় ওঠেননি ও নৌকার মাঝি হননি তাদের সাথেও আমাদের কথা হয়েছে। তারা কথা দিয়েছে অল্প দিনের ভিতরেই তারা নৌকাতে উঠবে। আমরা আশাবাদী শাহীন ভাই সেও আসবে, ইনশাল্লাহ আমরা শাহিন ভাইকে সাথে নিয়েই আগামী দিনের প্রোগামটা এখানে করবো।’ এ সভায় নৌকার প্রার্থী জামিরুল ইসলাম বাবুসহ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মিরা উপস্থিত ছিলেন। আবিদ হাসান মন্টি সরকারের বাবা রবিউল ইসলাম সরকার দৌলতপুর উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক। তার চাচা শহীদ সরকার মঙ্গল বর্তমান কমিটির সাধারন সম্পাদক। এ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ, জাসদ, জাকের পাটিসহ বিএনপির স্বতন্ত্র মিলিয়ে ৬জন চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বদ্বীতা করছেন। জামিরুল ইসলাম বাবু গতবারও দলীয় মনোনয়ন পান। তিনি রেজাউল হক চৌধুরীর অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নৌকার প্রার্থী জামিরুল ইসলাম বাবু বলেন, ‘কলিন্স ভাই এসেছিলেন আমার সমাবেশে। তিনি বক্তব্য দিয়েছিলেন।’ আর বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে এমরান চৌধুরী কলিন্স বলেন, ‘যা হওয়ার হয়েছে। ভাই বিষয়টি নিয়ে লেখা-লেখি না করায় ভালো। আমি প্রয়োজনে কথা বলবো।’ বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থী আবিদ হাসান মন্টি সরকার বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মি ও নৌকার প্রার্থী আমাকে মাঠে নামতে দিচ্ছে না। তারা হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। সাবেক এমপির ছেলে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা গুরুতর অপরাধের শামিল। তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।

শুধু তাই নয়, এমরান চৌধুরী কলিন্স হোগলবাড়িয়া ইউনিয়নের বিএনপি সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী বিল্লাল হোসেনকে তারাগুনিয়া থানামোড় এলাকায় প্রকাশ্য জনসন্মুখে নির্বাচনের মাঠ থেকে সরে দাড়ানোর জন্য নানা ধরণের হুমকি দিয়েছেন। এসময় তিনি বিল্লাল হোসেনকে বলেন, যদি ভাল চান তা’হলে সাংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন থেকে সরে দাড়ান, তা নাহলে মামল হামলাসহ বিভিন্ন ধরণের সমস্যা হলে আপনার কিছু বলার থাকবে না। কারন এবারের নির্বাচন অস্তিত্ব ও মর্যদার নির্বাচন, যেকোন মূল্যে চাচা সেলিম চৌধুরীকে বিজয়ী করবোই। তাই আপনি মান সম্মান নিয়ে নির্বাচনের মাঠ থেকে বসে যান। সেটাই আপনার জন্য মঙ্গল হবে। এরপর দলবল নিয়ে (প্রতীক বরাদ্দের দিন) সশস্ত্র মহড়া দিয়ে উপজেলা পরিষদে যান এমরান চৌধুরি কলিংস। এমরান চৌধুরী কলিন্সের এমন বক্তব্য ও আচরণে সাধারণ জনমনে আতঙ্ক ও সংশয় দেখা দিয়েছে। এমন বক্তব্য ও আগ্রাসী আচরন দেখালেও প্রশাসনিক কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে অন্যান্য প্রার্থীদের অভিমত।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
প্রকাশক কর্তৃক জেম প্রিন্টিং এন্ড পাবলিকেশন্স, ৩৭৪/৩ ঝাউতলা থেকে প্রকাশিত এবং মুদ্রিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Hi-Tech IT BD