1. bpdemon@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
  2. ratulmizan085@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
ঝালকাঠির রাজাপুরে সংস্কার বিহীন ব্রিজটির মালিক কে?এলজিইডি নাকি সওজ
বাংলাদেশ । রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১ ।। ১৭ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি
ব্রেকিং নিউজ
সিরাজগঞ্জের তাড়াশে চাঁদা আদায়ের সময় ভুয়া পুলিশ গ্রেফতার বগুড়ার নন্দীগ্রামে পুলিশি অভিযানে মাদক কারবারিসহ আটক-৪ কুমিল্লার লালমাইয়ে ফিলিং স্টেশনে অগ্নিকান্ড,প্রাইভেটকার পুড়ে ছাই স্বাধীনতার ৫০ বছরেও উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে চাঞ্চল্যকর জোড়া খুনের রহস্য উদঘাটন, প্রধান আসামীসহ আটক-৩ টাঙ্গাইলে ট্যাংকি পরিস্কার করতে গিয়ে মামা ভাগ্নের মৃত্যু সকল শুভবুদ্ধির মানুষকে অশুভ শক্তির মোকাবেলায় ঐক্যবদ্ধ হতে হবে: ডা. দীপু মনি ফরিদপুরের সালথায় আ’লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১ ফেসবুকে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে উস্কানিমূলক পোস্ট দেয়ায় ১যুবক আটক গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে জমি বিরোধে প্রতিপক্ষের আঘাতে স্কুলশিক্ষক গুরুতর আহত

ঝালকাঠির রাজাপুরে সংস্কার বিহীন ব্রিজটির মালিক কে?এলজিইডি নাকি সওজ

কঞ্জন কান্তি চত্রুবর্তী :
  • প্রকাশিত: বুধবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২১
  • ৫৮ বার পড়েছে
ঝালকাঠির রাজাপুরে সংস্কার বিহীন ব্রিজটির মালিক কেএলজিইডি নাকি সওজ
ঝালকাঠির রাজাপুরে সংস্কার বিহীন ব্রিজটির মালিক কেএলজিইডি নাকি সওজ

ঝালকাঠির রাজাপুর সদরে প্রবেশের একমাত্র মাধ্যম বাগড়ি বেইলি ব্রিজ।এই ব্রিজটির মালিকানা কোন দপ্তরের তা কেউই জানেনা।দীর্ঘদিন যাবৎ সংস্কারের অভাবে পড়ে থাকা এই বেইলি ব্রিজটি মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে।ব্রিজটি চলাচলের প্রায় অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে।অথচ এই ব্রিজটি দিয়ে প্রতিদিন কয়েকহাজার মানুষ ঝুকি নিয়ে চলাচল করে,যাতায়াতকরে শত শত যানবাহন।

প্রায় বছর ধরে এ বেইলি ব্রিজটি সংস্কার বিহীন পড়ে থাকলেও কোন দপ্তর সংস্কারে এগিয়ে না আসায় জনমনে একটাই প্রশ্ন এলজিইডি না আরএইচডি ব্রিজটির মালিকানা আসলে কার ?রাজাপুর উপজেলা সদরের প্রাননকেন্দ্রে অবস্থিত এ বাগড়ি বেইলি ব্রিজটি নব্বইয়ের দশকে নির্মিত হয়।এরপর এই বেইলি ব্রিজটিতে গত ত্রিশ বছরে আর কোন সংস্কার লাগেনি।বছর খানেক আগে এই ব্রিজের পাটাতন নষ্ট হয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়।

ব্রিজটি মেরামতের জন্য কেনো দপ্তর এগিয়ে না আসায় রাজাপুর থানা ভারপাপ্ত কর্মকর্তা নিজ উদ্দোগে ব্রিজের পাটাতন সংস্কার করেন।এরপর কিছুদিন এ বেইলি ব্রিজটি যান চলাচলে উপযোগী ছিল।হঠাৎ করে আবার ব্রিজটির পাটাতনে নতুন করে কয়েকটি গর্ত দেখা দেয়।স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা জানান,বেইলী ব্রিজটির পাটাতনগুলো পুরনো হয়ে গেছে।পাটাতন গুরোর গুলোর বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত হয়ে রয়েছে।

কিন্তু দুঃখের বিষয়,প্রশাসনের নাকের ডগায় থাকলেও ব্রিজটির সংস্কার হচ্ছে না।অথচ এই ব্রিজটি দিয়ে নির্বাহী কর্মকর্তা, এসিল্যান্ডসহ প্রতিদিন শতশত যানবাহন চলাচল করে। প্রতিদিন এই ভাঙ্গা ব্রিজের গর্তে রিক্সা,ভ্যান,মটর সাইকেলসহ যানবাহনের চাকা ঢুকে দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে।ভাঙ্গা অবস্থায় প্রায় পনেরদিন পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত কেউ সংস্কারে এগিয়ে আসেনি।

নানা ধরনের যানবাহন অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করলেও সংশ্নিষ্ট কর্তৃপক্ষ তা মেরামতের উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। এ কারণে ব্রিজটি ব্যবহারকারীদের দুর্ভোগ ও জীবনের ঝুঁকি বেড়েই চলছে।যে কোনো সময় পাটাতন ভেঙে যানবাহন খালে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।জরুরি ভিত্তিতে ব্রিজটি ভেঙে পাকা সেতু নির্মাণ করার দাবি জানিয়েছে এলাকাবাসী।

এলজিইডি রাজাপুর উপজেলা প্রকৌশলী গোলাম মস্তোফা গনমাধ্যমকে বলেন,ব্রিজের দুই দিকের রাস্তা আমাদের হলেও এই বেইলি ব্রিজ আমাদের দপ্তরের করা না।কেননা,এলজিইডি কংক্রিটের ছাড়া ষ্টিলের ব্রিজ কখনোই করেনা।এ ব্রিজ সড়ক ও জনপথ বিভাগের।

ঝালকাঠি সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শেখ নাবিল হোসেন বলেন,রাস্তা এলজিইডি বা রোডস যারই হোকনা কেন যখন হস্তান্তর হয়েছে তখন ব্রিজসহ এলজিইডি দপ্তরে হস্তান্তর হয়েছে।এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী হয়তো বিষয়টি জানেনা।এখানে আমাদের কোন দায়িত্ব নাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
প্রকাশক কর্তৃক জেম প্রিন্টিং এন্ড পাবলিকেশন্স, ৩৭৪/৩ ঝাউতলা থেকে প্রকাশিত এবং মুদ্রিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Hi-Tech IT BD