1. bpdemon@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
  2. ratulmizan085@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
খোলা আকাশের নিচে বাবার লাশ, জমি ভাগাভাগিতে ব্যাস্ত ৫ সন্তান!
বাংলাদেশ । শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪ ।। ১৪ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

খোলা আকাশের নিচে বাবার লাশ, জমি ভাগাভাগিতে ব্যাস্ত ৫ সন্তান!

মোঃ সিরাজুল ইসলাম:
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১০ জুলাই, ২০২১
  • ৪৫৮ বার পড়েছে

বাবার লাশ খোলা আকাশের নিচে রেখে সম্পত্তির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে শালিসে ব্যস্ত ৫সন্তান। গত মঙ্গলবার (৬ জুলাই) বিকেল ৩ টায় মৃত্যু হলেও বুধবার দুপুর ১টা পর্যন্ত বাড়ির উঠানেই পরে থাকে লাশ। দীর্ঘ ২২ঘন্টা পর শালিসের মাধ্যমে ইউপি চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে বৃদ্ধের লাশ দাফনের সিদ্ধান্ত হবার পর পুলিশ এসে ময়না তদন্তের জন্য নিয়ে যান লাশ। বৃদ্ধের সন্তানদের এমন কীর্তিতে হতবাক স্থানীয়রা।

এমনই এক মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের দক্ষিণ পাঁচুরিয়ার অম্বলপুর গ্রামে। মৃত ব্যক্তি ওই এলাকার মৃত সাহাজুদ্দিন মোল্লার ছেলে ইয়াছিন মোল্লা (৮৫)। স্থানীয়রা জানান, জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মৃত ইয়াছিন মোল্লার ৫ সন্তানের মধ্যে বাবলু মোল্লা, ফুলবড়–, রাবেয়া ও মমতাজের সাথে ছোট ছেলে রহমান মোল্লার দীর্ঘ দিন ধরেই বিরোধ চলে আসছিল।

সেই বিরোধের জেরেই মৃত ব্যক্তির লাশ দাফন না করে জমি-জমা ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বন্দের সৃষ্টি হয়। দীর্ঘ ২২ঘন্টা পর দেবগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মো. হাফিজুল ইসলামের হস্তক্ষেপে শালিসের মাধ্যমে সুরাহা হলেও স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ লাশটিকে উদ্ধার করে জিডি মূলে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। মৃত ইয়াছিন মোল্লার সন্তান বাবলু মোল্লা, ফুলবড়–, রাবেয়া ও মমতাজ অভিযোগ করে সাংবাদিকদের বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আমাদের বাবা ছোট ভাই রহমান মোল্লার কাছে থাকার সুযোগে তাকে ফুঁসলিয়ে তার সব সম্পত্তি নিজের নামে লিখে নেন।

এ নিয়ে রাজবাড়ী কোর্টে আমরা একটা মামলাও করি। সেই মামলায় গত ৫জুলাই কোর্ট বাবাকে হাজির হতে নির্দেশ দিলেও অসুস্থ্যতার কারণে সে উপস্থিত থাকতে পারেনি। অসুস্থতার খবরে আমরা তাকে ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা করাতে বললেও সে আমাদের কথা না শুনে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে চিকিৎসা করায়। আমাদের ধারণা ছোট ভাই রহমান ঘুমের ঔষুধ খাইয়ে তাকে মেরে ফেলেছে।

এ প্রসঙ্গে মৃত ইয়াছিন মোল্লার ছোট ছেলে রহমান মোল্লা বলেন, গত শুক্রবার হঠাৎ করে আমার বাবা অসুস্থ্য হলে তাকে গোয়ালন্দে একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে ডাক্তার দেখাই, এসময় ডাক্তার কিছু টেস্ট ও ঔষুধ লিখে দিয়ে বাবাকে বাসায় রেখে চিকিৎসা করাতে বলেন। আমি সেই মতে বাসায় রেখে চিকিৎসা করাই। গত মঙ্গলবার বেলা আড়াইটার দিকে বাবা আরো বেশী অসুস্থ্য হলে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে দেখে মৃত ঘোষণা করেন।

এ প্রসঙ্গে দেবগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মো. হাফিজুল ইসলাম বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক ঘটনা। এ ঘটনা শোনার সাথে সাথেই আমি তাদের ঐখানে যাই এবং শালিসের মাধ্যমে লকডাউনের পরে সমাধানের কথা বলে স্ট্যাম্পে তাদের উভয় পক্ষের স্বাক্ষর নিয়ে মৃত ইয়াছিন মোল্লার দাফনের সিদ্ধান্ত নেই। এ সময় ঘটনাস্থলে থানা পুলিশ উপস্থিত হয়ে মৃত ব্যক্তির লাশ ময়না তদন্তের জন্য নিয়ে যায়।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার এস আই মো. মিজানুর রহমান আকন্দ জানান, স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে লাশ উদ্ধার করি এবং জিডি মূলে ময়না তদন্তের জন্য রাজবাড়ী হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
প্রকাশক কর্তৃক জেম প্রিন্টিং এন্ড পাবলিকেশন্স, ৩৭৪/৩ ঝাউতলা থেকে প্রকাশিত এবং মুদ্রিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Hi-Tech IT BD