1. bpdemon@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
  2. ratulmizan085@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
কারখানা খোলার খবরে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে জনস্রোত
বাংলাদেশ । মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪ ।। ১৯শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

কারখানা খোলার খবরে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে জনস্রোত

মোঃ সিরাজুল ইসলাম :
  • প্রকাশিত: শনিবার, ৩১ জুলাই, ২০২১
  • ৩৯০ বার পড়েছে

কঠোর বিধিনিষেধ সম্পূর্ণ উপেক্ষা ঢাকামুখি মানুষের স্রোতের অচল হয়ে পড়েছে সাধারণ মালবাহী গাড়ি।এমনকি রোগীবাহী এম্বুলেন্স কে হিমসিম খেতে হচ্ছে ফেরিতে উঠতে।সাধারণ সময়েও এমন ভীড় কখনো দেখাযায় না।সরকারের দেয়া কঠোর বিধিনিষেধ,প্রতিদিন দুইশো জনের উপর মৃত্যু।এসব কোন কিছুই মানুষের উপর প্রভাব ফেলতে পারছে না।মহিলা,শিশু,বৃদ্ধ কারো কোন হুশ নেই।

সবকিছু পিছনে ফেলে মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে হলেও যেতে হবে এ এক অভাবনীয় দৃশ্য দেশের ব্যাস্ত নৌরুট রাজবাড়ী জেলার দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে।করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে চলমান কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে আগামীকাল রোববার (১ আগস্ট) থেকে রপ্তানিমুখী শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সরকার।এ খবরেই রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীদের ভিড় বেড়েছে।

আজ শনিবার সকাল থেকেই দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া প্রতিটি ফেরিতে যাত্রীদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত।তবে ফেরি পারাপারের সময় করোনার ভয়ে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মানার বালাই ছিল না যাত্রীদের মধ্যে।কারো কারো মুখের নিচে মাস্ক থাকলেও অধিকাংশ যাত্রীর মুখে মাস্ক ছিলো না।এদিকে,গণপরিবহন বন্ধ থাকায় বিভিন্ন উপায়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে ভেঙে ভেঙে দৌলতদিয়া ঘাটে এসে ফেরিতে উঠছেন যাত্রীরা।

দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে যাত্রীরা অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে মাইক্রোবাস,প্রাইভেটকার,মাহেন্দ্রা,মোটরসাইকেল,অটোরিকশায় করে ঘাটে আসছেন তারা।ঢাকামুখী কয়েকজন যাত্রীর সাথে কথা বললে তারা ক্ষোভের সঙে বলেন আগামীকাল থেকে তাদের কারখানা খুলছে।এ জন্য ভোগান্তি সত্বেও ঢাকায় আসছেন।দূরপাল্লার বাস বন্ধ থাকায় ভেঙে ভেঙে আসতে হচ্ছে তাদের।একইসঙ্গে কয়েকগুণ বেশি ভাড়া গুনতে হচ্ছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক শিহাব উদ্দিন বলেন,বর্তমানে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ছোট-বড় মিলিয়ে আটটি ফেরি চলাচল করছে।তবে ঘাটে পারের অপেক্ষায় কোনো গাড়ীর সিরিয়াল নেই।বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ জানায়,লকডাউনের কারণে সীমিত পরিসরে ফেরি চলাচল করছে।সেই সুযোগে গত ২৩ জুলাই থেকেই শত শত যাত্রী পারাপার হচ্ছে এই রুটে।

করোনার সংক্রমণ রোধে গত ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়।এ বিধিনিষেধ চলবে আগামী ৫ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত।বিধিনিষেধে সব ধরনের গণপরিবহন,সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ আছে।খাদ্যপণ্য উৎপাদন-প্রক্রিয়াকরণ,চামড়া পরিবহন-সংরক্ষণ ও ওষুধ খাত ছাড়া বন্ধ রয়েছে সব ধরনের শিল্প-কারখানা।এরমধ্যে গার্মেন্টসসহ সব ধরনের শিল্প-কারখানা খুলে দিতে সরকারের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন মালিকরা।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সঙ্গে বৈঠক করে বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতারা এ দাবি জানান।এরপরই শুক্রবার (৩০ আগস্ট) রফতানিমুখী শিল্প-কারখানা খুলে দেয়ার ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।প্রজ্ঞাপনে বলা হয়,সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় আগামী ১ আগস্ট সকাল ৬টা থেকে রফতানিমুখী সব শিল্প ও কলকারখানা আরোপিত বিধিনিষেধের আওতা বহির্ভূত রাখা হলো।

এদিকে,শিল্প-কারখানা খোলার অনুমতি দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে সাধুবাদ জানিয়েছে পোশাক শিল্প পরিবার তথা বিজিএমইএ,বিকেএমইএ এবং ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
প্রকাশক কর্তৃক জেম প্রিন্টিং এন্ড পাবলিকেশন্স, ৩৭৪/৩ ঝাউতলা থেকে প্রকাশিত এবং মুদ্রিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Hi-Tech IT BD