1. bpdemon@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
  2. ratulmizan085@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক্স-রে মেশিন ১৫বছরেও সচল হয়নি
বাংলাদেশ । শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১ ।। ১৬ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি
ব্রেকিং নিউজ
নেত্রকোণা সদরে আমতলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কর্মী সমাবেশ অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে ৩কিলোমিটার রাস্তা স্বেচ্ছাশ্রমে সংস্কার করলো এলাকাবাসী ৩৪দিন কিশোরীকে আটকে রেখে গণধর্ষণ,ভারতে পাচারের সময় কৌশলে পলায়ন জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে সেতু দেবে যাওয়ায় দূভোর্গে ৮গ্রামের মানুষ বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বাস্তবায়নে আওয়ামীলীগ নিরলসভাবে কাজ করছে-এমপি হাসেম খান নীলফামারীর সৈয়দপুরে চালকের মাথায় আঘাত করে ইজিবাইক ছিনতাই মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে দীর্ঘ ১০বছর পর পৌরনির্বাচনে ২হেভিওয়েট প্রার্থীর লড়াই বগুড়ার নন্দীগ্রামে পুলিশের অভিযানে পৃথক ২মামলায় আটক-৬ পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ কুষ্টিয়া লালন শাহ মাজার মাঠ সংলগ্ন কালী নদী থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক্স-রে মেশিন ১৫বছরেও সচল হয়নি

আতাউর রহমান :
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৪৬ বার পড়েছে
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক্স-রে মেশিন ১৫বছরেও সচল হয়নি
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক্স-রে মেশিন ১৫বছরেও সচল হয়নি

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একমাত্র এক্স-রে মেশিনটি গত ১৫ বছর ধরে বিকল হয়ে পড়ে আছে।এতে প্রতিনিয়ত ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রোগীরা।জানা গেছে,এই উপজেলার মানুষের স্বাস্থ্যসেবা দিতে ১৯৯৯ সালের ২ জুলাই তৎকালীন সাংসদ বাংলাদেশ সরকারের সাবেক আইনমন্ত্রী এডভোকেট আবদুল মতিন খসরু এমপি এ হাসপাতালটি উদ্বোধন করেন।

জন্মলগ্নের সেই এক্স-রে মেশিনটি উদ্বোধনের পর কয়েক মাস সচল থাকলেও তা গত ১৫ বছর যাবত বিকল হয়ে পড়ে আছে।সরেজমিনে গতকাল ২ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেল্গক্সে গিয়ে দেখা যায়,তালাবদ্ধ অবস্থায় রয়েছে কমপ্লেক্সের একমাত্র এক্স-রে কক্ষটি।এ বিষয়ে জানতে চাইলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান,হাসপাতালের একমাত্র এক্স-রে মেশিনটি নষ্ট থাকায় দীর্ঘ ১৫ বছর যাবত এই কক্ষটি তালাবদ্ধ অবস্থায় রয়েছে।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়,স্বাস্থ্য কমপেল্গক্সে প্রতি মাসে সাত হাজারের বেশি রোগী আউট ডোর ও ইনডোরে চিকিৎসাসেবা নিতে আসে।এ ছাড়াও প্রতিদিন গড়ে অর্ধশতাধিক রোগী জরুরি বিভাগ থেকে চিকিৎসাসেবা নেন।সরকারি এক্স-রে মেশিনে কোনো রোগীর এক্স-রে করা হলে তাতে রোগীর যতোটা ব্যয় হয়।অন্য কোথাও এর ব্যয় কয়েকগুণ বেড়ে যায় বলে জানান ভুক্তভোগীরা।

এদিকে উপজেলার সিদলাই ইউনিয়নের বেড়াখোলা থেকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী রোকসানা বেগম (৫২) ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,স্বাস্থ্য কমপেল্গক্সের সেবার মান আগের তুলনায় অনেকটা ভালো হয়েছে।কিন্তু চিকিৎসার যন্ত্রপাতিগুলো সচল থাকলে আরও বেশি সেবা পাওয়া যেত।এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টরা কোনো নজর দিচ্ছেন না বলে মনে করেন তিনি।উপজেলার দুলালপুর ইউনিয়নের বালিনা থেকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা আমেনা বেগম (৪২) জানান,এই হাসপাতালের এক্স-রে মেশিন নষ্ট থাকায় উপজেলার সাধারণ রোগীরা সময় ও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু হাসনাত মোঃ মহিউদ্দিন মুবিন বলেন,হাসপাতাল কমপ্লেক্সে এক্স-রে মেশিন যেটি আছে তা ১৫ বছর ধরে বিকল হয়ে আছে।উন্নতমানের একটি এক্স-রে মেশিনের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করা হয়েছে।কর্তৃপক্ষ আমাকে আশ্বস্ত করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
প্রকাশক কর্তৃক জেম প্রিন্টিং এন্ড পাবলিকেশন্স, ৩৭৪/৩ ঝাউতলা থেকে প্রকাশিত এবং মুদ্রিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Hi-Tech IT BD